1. admin@sobsomoynarayanganj.com : admin : MD Shanto
রবিবার, ০৩ মার্চ ২০২৪, ১০:০৮ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
পিবিআই এর পুলিশ পরিদর্শক আতাউর রহমানের বিদায় সংবর্ধনা বেইলি রোডে অগ্নিকান্ডে নিহতের ঘটনায় আজমেরী ওসমানের শোক ভাষা সৈনিক সামসুজ্জোহার স্মরনে তাঁতীলীগ রামারবাগ ইউনিট এর উদ্যোগে দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত  প্রধানমন্ত্রীর আশ্রায়ন প্রকল্পের ঘর বিক্রির প্রতিযোগিতা চেয়ারম্যান ও মেম্বারদের মাঝে সৈয়দপুরে মজিবনগরে ২৫০ টাকার লোভ দেখিয়ে দুই শিশুকে ধর্ষণ আমরা হয়তো চলে যাবো কিন্তু নবপ্রজন্ম কে সুযোগ দিতে হবে- এ্যাড,আবু হাসনাত বাদল সৈয়দপুর পাঠান নগরে নাসিম ওসমান ক্রীকেট টুনার্মেন্ট এর শুভ উদ্বোধন করেন – পারভীন ওসমান ফতুল্লা ইউপি”র উপ নির্বাচনে অটোরিকশা প্রতিক পেয়েছেন চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী-ফাইজুল ইসলাম যেখানে মাদক না থাকে সেই এলাকা ফুলের বাগান হয়ে যায়- কালাম মুন্সি  রেকারের কনস্টেবল শহীদুল বাহিনীর মারধরে হসপিটালে ভর্তি সিএনজি চালক যুবরাজ

আজরাইলের গল্প শুনিয়ে ফখরুল বললেন, আ.লীগের সময় শেষ

  • আপডেট সময় : সোমবার, ৩০ জানুয়ারি, ২০২৩
  • ৪৬ বার পঠিত

আওয়ামী লীগ সরকারের সময় শেষ হয়ে এসেছে বলে দাবি করেছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। ক্ষমতাসীন দলের সময় কীভাবে সময় শেষ হয়েছে, তা বোঝাতে আজরাইলকে নিয়ে বিএনপি নেতা-কর্মীদের একটি গল্পও শোনান দলটির মহাসচিব।

আজ বুধবার নয়াপল্টনে দলীয় সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে মির্জা ফখরুল ইসলাম এই গল্প বলেন। ‘২৫ জানুয়ারি গণতন্ত্র হত্যা দিবসে গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারের দাবিতে’ ঢাকা মহানগর উত্তর ও দক্ষিণ বিএনপির যৌথ উদ্যোগে এ সমাবেশ আয়োজন করা হয়।

ফখরুল বলেন, এক ব্যক্তি আত্মহত্যা করার জন্য নদীতে ঝাঁপ দিতে যান। হঠাৎ পেছন থেকে আজরাইল তাকে টেনে ধরে। এ সময় ওই ব্যক্তি আজরাইলের কাছে জানতে চান, কেন তাকে বাঁচানো হলো। আজরাইল তাঁকে বলেন, তোমার সময় তো শেষ হয়নি। ওই ব্যক্তি বললেন, আমি বাঁচতে চাই না, আমার অনেক অভাব। এ কথা শুনে আজরাইল তাঁকে গ্রামে গিয়ে ডাক্তারি করার পরামর্শ দেন। সেই ব্যক্তি অবাক হয়ে বলেন, আমি তো ডাক্তারি করতে জানি না। উত্তরে আজরাইল তাঁকে একটি বুদ্ধি শিখিয়ে দিলেন।

‘আজরাইল ওই ব্যক্তিকে বললেন, তোমার কাছে কোনো রোগী এলে আমি যদি তাঁর পায়ের কাছে দাঁড়ায়, তাহলে তুমি বুঝবে সে আরও অনেক দিন বাঁচবে। এটা দেখে তাকে যেকোনো ওষুধ দিলেও সে ভালো হয়ে যাবে। কিন্তু যদি রোগীর মাথার কাছে দাঁড়ায়, তাহলে বুঝবে যে ওই রোগীর সময় শেষ, সে আর বাঁচবে না। তখন তুমিও বলে দেবে যে রোগী বেশি দিন বাঁচবে না। এই পরামর্শ পেয়ে ওই ব্যক্তি গ্রামে চলে যান।’

‘এরপর সেখানে ডাক্তারি করে অনেক অর্থসম্পদ উপার্জন করেন। এরপর একদিন দুপুরে খাওয়ার পর ওই ব্যক্তি শুয়ে ছিলেন। এমন সময় আজরাইল তাঁর মাথার কাছে এসে দাঁড়ায়। এতে সে ভয় পেয়ে যায় এবং সঙ্গে সঙ্গে ঘুরে শুয়ে পড়ে যেন আজরাইল তাঁর পায়ের কাছে থাকে। এ রকম তিন-চারবার করার পরে আজরাইল তার কাছে জানতে চান, সে এমন করছে কেন? এটা শুনে সে বলে, আমি তো সুস্থ, তুমি এখানে কেন এসেছ? জবাবে আজরাইল তাঁকে বলে, তুমি যতই সুস্থ থাকো আর ঘুরে শুয়ে থাক, এতে কোনো লাভ হবে না। কারণ, তোমার সময় শেষ হয়ে এসেছে।’

সমাবেশে আসা বিএনপি নেতাকর্মীদের একাংশ। ছবি- সমকাল
আওয়ামী লীগ সরকারের পতনের দাবিতে ধারাবাহিক কর্মসূচি পালন করে আসছে বিএনপি। এরই অংশ হিসেবে বিএনপি আজকের সমাবেশ থেকেও নতুন কর্মসূচি দিয়েছে। বিরোধী দলের কর্মসূচিতে ক্ষমতাসীনদের পাল্টা কর্মসূচি দেওয়ার প্রতিবাদে আগামী ৪ ফেব্রুয়ারি দেশের সব বিভাগীয় শহরে বিক্ষোভ-সমাবেশ করার ঘোষণা দিয়েছে বিএনপি।

মির্জা ফখরুল বলেন, আমরা যখন কর্মসূচি দিই, তখন আওয়ামী লীগ পাল্টা কর্মসূচি দেয়। এদের এত ভয়, নিজেদের ওপর এত আস্থার অভাব, এই ভয়ে তারা কর্মসূচি দেয়। নিজেদের ওপর কোনো আস্থা নেই তাদের।

পৃথিবীতে কোনো স্বৈরচারী সরকার এমনি এমনি যায়নি উল্লেখ করে বিএনপি মহাসচিব বলেছেন, এরা এমনি এমনি যায় না। আন্দোলনের মধ্য দিয়ে সরাতে হবে। আমাদের আন্দোলন চলতেই থাকবে, যতক্ষণ পর্যন্ত না আওয়ামী লীগ সরকার সরছে।

তিনি বলেন, এই আওয়ামী লীগ গণতন্ত্র হত্যা করেছে। প্রতিবার, প্রতিক্ষণে, প্রতিদিনই তারা (আওয়ামী লীগ) গণতন্ত্রকে হত্যা করে চলেছে এবং আমাদের স্বপ্নগুলো ভেঙে ফেলেছে। তাই আওয়ামী লীগকে আন্দোলনের মধ্যে দিয়েই সরাতে হবে।

বিএনপি মহাসচিব বলেন, এদের সময় হয়ে গেছে। এবার এদের (আওয়ামী লীগ সরকার) যেতে হবে। যারা গণতন্ত্র হত্যা করেছে, যারা গণতন্ত্রের লড়াইয়ে আমার ভাইদের হত্যা করেছে, আমার ভাইদের গুম করেছে, আমাদের ছেলেদের আহত করেছে, কারাগারে নেতাকর্মীদের অত্যাচার-নির্যাতন করেছে, সেই ঋণ শোধ করার জন্য এদেরকে অবশ্যই যেতে হবে।

আওয়ামী লীগ কখনও গণতন্ত্র বিশ্বাস করতো না মন্তব্য করে তিনি বলেন, আওয়ামী লীগ মুখে গণতন্ত্রের কথা বলে। কিন্তু কাজ করে উল্টো। তারা ভিন্নমত সহ্য করতে পারে না। আওয়ামী লীগের ইতিহাস সন্ত্রাসের ইতিহাস। এই সন্ত্রাস করে করেই আওয়ামী লীগ জোর করে ক্ষমতায় টিকে থাকতে চায়।

মঞ্চে উপস্থিত বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতারা। ছবি- সমকাল
রাষ্ট্রপতি নির্বাচনের তফশিল ঘোষণা প্রসঙ্গে মির্জা ফখরুল বলেন, ১৯ ফেব্রুয়ারি রাষ্ট্রপতির নির্বাচন। কোন রাষ্ট্রপতি? যে রাষ্ট্রপতির কোনো ক্ষমতা নেই, সেই রাষ্ট্রপতি? আমরা রাষ্ট্রপতির আসনটাকে খুব সম্মান করি। কারণ যেই থাক, যেই হোক, যে দলেরই হোক, রাষ্ট্রপতি রাষ্ট্রের প্রধান। কিন্তু রাষ্ট্রপতি কি তার দায়িত্ব পালন করতে পারেন? তিনি কি প্রধানমন্ত্রীর কথার বাইরে একটা কাজ করতে পারেন? তিনি কি নির্বাচন কমিশন পরিবর্তন করতে পারেন? তিনি কি একটা আইন পরিবর্তন করতে পারেন? পারেন না। সেই কারণে আমরা আমাদের ২৭ দফার মধ্যে পরিষ্কার করে বলেছি, রাষ্ট্রপতি এবং প্রধানমন্ত্রীর ক্ষমতায় মধ্যে একটা ভারসাম্য আনতে হবে।

বিএনপির চলমান আন্দোলন চলতেই থাকবে জানিয়ে ফখরুল বলেন, যতক্ষণ পর্যন্ত এই আওয়ামী লীগ সরছে, আমাদের কারাবন্দি ভাইদের মুক্ত করতে না পারছি, ততক্ষণ পর্যন্ত আমাদের এই সংগ্রাম চলবে।

তিনি বলেন, আমাদের প্রতিটি আন্দোলন সফল হচ্ছে। প্রতিদিন জনগণ আরও বেশি করে সম্পৃক্ত হচ্ছে। জনগণকে সম্পৃক্ত করে আমাদের অবশ্যই আগামী দিনগুলোতে সফল হতে হবে এবং জনগণকে সঙ্গে নিয়েই আমাদের জয়ী হতে হবে।

ঢাকা মহানগর দক্ষিণ বিএনপির আহবায়ক আবদুস সালামের সভাপতিত্বে এবং দক্ষিণের সদস্য সচিব রফিকুল আলম মজনু ও উত্তরের সদস্য আমিনুল হকের সঞ্চালনায় সমাবেশে বক্তব্য রাখেন বিএনপি নেতা ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, বেগম সেলিমা রহমান, ড. মঈন খান, আব্দুল আউয়াল মিন্টু, আমান উল্লাহ আমান, খায়রুল কবির খোকন, ফজলুল হক মিলন, শামা ওবায়েদ, শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানী, নাজিম উদ্দিন আলম, তাবিথ আউয়াল, ইশরাক হোসেন প্রমুখ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরও খবর
© All rights reserved © 2022 Bartoman News
Theme Customized By Theme Park BD