1. admin@sobsomoynarayanganj.com : admin : MD Shanto
শুক্রবার, ২৭ জানুয়ারী ২০২৩, ০৭:০৮ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
জনগনের টাকায় অস্ত্র ও গুলি ক্রয় করে জনগনের বিরুদ্ধে ব্যবহার সরকার – ইসহাত সরকার কথা নয় কাজে প্রমান করেছি : এড. জুয়েল শম্ভুপুরা কর্মী সম্মেলনে আওয়ামীগের দুই গ্রুপের সংর্ঘষ আহত ১৫ রূপগঞ্জে ধর্ষণের পর শিশু হত্যা মামলায় একজনের মৃত্যুদন্ড ঝিনাইগাতীতে চাঞ্চল্যকর স্কুল ছাত্রীকে গণধর্ষণ ও হত্যা মামলার মৃত্যুদন্ডপ্রাপ্ত আসামী গ্রেপ্তার আওয়ামীলীগের প্রতিষ্ঠাতাও জিয়াউর রহমান – মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল। জেলা আইনজীবী সমিতির নির্বাচন ২০২৩-২৪ ইং জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ঐক্য পরিষদ মনোনীত পরিষদের প্যানেল পরিচিতি সভা অনুষ্ঠিত আওয়ামীলীগের প্রতিষ্ঠাতাও জিয়াউর রহমান – মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল সোনারগাঁও থানা ও জেলা গোয়েন্দা পুলিশের যৌথ অভিযানে সংঘবদ্ধ ডাকাত দলের ৫ সদস্য গ্রেফতার ঢাবির হলে ছাত্র নির্যাতনের প্রতিবাদে মশাল মিছিল

পুলিশ জোর করে আটকের চেষ্টাকালে নারীর বিষপান

  • আপডেট সময় : বুধবার, ২৫ জানুয়ারি, ২০২৩
  • ২২ বার পঠিত

বিনা পরোয়ানায় ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়া থানা পুলিশ এক নারীকে আটক করার চেষ্টাকালে ক্ষোভে পুলিশের সামনেই ওই নারী বিষপান করেন। বর্তমানে ওই নারী ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। তাঁর নাম মৌসুমী আক্তার (৩০)। তাঁর অবস্থা আশঙ্কাজনক। মৌসুমী উপজেলার দক্ষিণ ইউনিয়নের নুরপুর গ্রামের আইয়ুব খানের মেয়ে। সোমবার সন্ধ্যায় নুরপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

মৌসুমী আক্তারের মা শাহানা বেগম বলেন, সোমবার সন্ধ্যা ৬টার দিকে আখাউড়া থানার এএসআই আব্দুল আজিজ ৮-১০ জন পুলিশ নিয়ে আমাদের বাড়িতে এসে আমার মেয়েকে জোর করে আটক করে থানায় নিয়ে যেতে চান। আমার মেয়ে তখন তাকে থানায় নিয়ে যাওয়ার কারণ জিজ্ঞাসা করলে সে জানায়, ‘আমার দুইটা ছেলে আছে, আমার স্বামী মানসিক ভারসাম্যহীন। থানায় যাব কেন?’ এ সময় আজিজ নামে ওই পুলিশ সদস্য বলেন, ‘ওসি সাহেব তাঁকে নিয়ে যেতে বলেছেন।’ তখন আমি পুলিশকে বলি, ‘আমার মেয়ের হার্টের অসুখ, তাকে নিয়েন না। দরকার হলে আমি থানায় যাব। পরে পুলিশ জোরাজুরি করে আমার মেয়েকে ধরে নিতে চাইলে আমার মেয়ে ক্ষোভে বিষ খেয়ে ফেলে। কিন্তু পুলিশের সামনে বিষপান করলেও কেউ তাকে ফেরাতে আসেননি। পরে আমরা মেয়েকে প্রথমে আখাউড়া হাসপাতালে নিয়ে যাই। সেখান পাকস্থলী ওয়াশ করে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে ব্রাহ্মণবাড়িয়া হাসপাতালে পাঠায়। অবস্থার অবনতি হলে ঢাকা নিয়ে যাই। বর্তমানে আমার মেয়ে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।’

এ ব্যাপারে আখাউড়া স্বাস্থ্য কমপ্লেপের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা. মো. লুৎফুর রহমান বলেন, রোগীর স্টমাক ওয়াশ করে বিষ পাওয়া গেছে। প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে তাঁকে জেলা সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

আখাউড়া থানার অফিসার ইনচার্জ মো. আসাদুল ইসলাম বলেন, ওই নারী একজন মাদক কারবারি। ২০১৮ সালে একটি মাদক মামলায় তিনি কারাগারেও ছিলেন। সোমবার পরিত্যক্ত অবস্থায় ২০ কেজি গাঁজা উদ্ধার করা হয়েছিল। পরে খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, গাঁজার মালিক ওই নারী ও তাঁর স্বামী। তাই তাঁকে আনতে পুলিশ পাঠিয়েছিলাম। তবে তাঁর বিরুদ্ধে কোনো ওয়ারেন্ট ছিল না। তাঁর ঘরে কিছু পাওয়া যায়নি। যদি এএসআই আজিজের কোনো ভুল হয়, তার বিরুদ্ধে পদক্ষেপ নেওয়া হবে।

মোবারক হোসেন নামে মৌসুমীর এক স্বজন সমকালকে বলেন, কোনো সুনির্দিষ্ট অভিযোগ ছাড়াই মৌসুমীকে আটক করতে যায় পুলিশ। তাঁর বিরুদ্ধে মাদক মামলার কথা জানা নেই।

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার পুলিশ সুপার শাখাওয়াত হোসেন বলেন, বিষপানের ঘটনাটি ওই নারীর একটি কৌশল। ঘটনা অন্য খাতে নেওয়ার চেষ্টা করেন তিনি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরও খবর
© All rights reserved © 2022 Bartoman News
Theme Customized By Theme Park BD