1. admin@sobsomoynarayanganj.com : admin : MD Shanto
শুক্রবার, ০৯ ডিসেম্বর ২০২২, ০৮:০৫ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
আরডিএ’র নকশা বাণিজ্য, দূর্নীতিবাজরা বহাল তবিয়তে ফতুল্লা রিপোর্টার্স ইউনিটির উপদেষ্টা মীর সোহেল আলীর জন্মদিন উদযাপন পাবলিক পরীক্ষায় ধর্ম শিক্ষা বহালের দাবিতে মানববন্ধন ও গনমিছিল ১২ কেজি এলপি গ্যাসের দাম বাড়ল ৪৬ টাকা আন্তর্জাতিক নারী নির্যাতন প্রতিরোধ পক্ষ ও বিশ্ব মানবাধিকার দিবস’২০২২ উপলক্ষে সংবাদ সম্মেলন মাদকাসক্তির প্রকৃতি ও আমাদের করণীয় শীর্ষক সেমিনারে যুব সমাজ হুমকির মুখে গণপরিবহনে যৌন নিপীড়ন প্রতিরোধে সচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে পরিবহন মালিক ও শ্রমিক নেতৃবৃন্দের সাথে মহিলা পরিষদ এর মতবিনিময় সভা শেরপুরে প্রতিবন্ধী দিবস পালিত শেরপুরের নালিতাবাড়ীতে বিশ্ব শিশু দিবস ও শিশু অধিকার সপ্তাহ পালিত শেরপুরের শ্রীবরদীতে জাতীয় প্রতিবন্ধী দিবস উপলক্ষে প্রতিবন্ধীদের মাঝে শীত বস্ত্র ও খাবার বিতরণ

আলীরটেকে পরকিয়া প্রেমের জেরে দিদারকে হত্যার ১৫দিন পর লাশ উত্তোলন

  • আপডেট সময় : সোমবার, ১ আগস্ট, ২০২২
  • ৩২১ বার পঠিত

বর্তমান নিউজ.কমঃ

নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলার আলীরটেক ইউনিয়নের ক্রোকেরচরে পরকিয়া প্রেমের জের ধরে দর্জি শ্রমিক দিদার হোসেন কে হত্যা করার ১৫ দিন পর লাশ কবর থেকে উত্তোলন করা হয়েছে।

সোমবার (১ আগষ্ট) দুপুরে জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট কেএস ইশমাম ও পুলিশের উপস্থিতিতে দিদারের লাশ কুড়েরপার কবরস্থান হতে উত্তোলন করা হয়।
গত ১৭ জুলাই হত্যা করে টিনশেড ঘরের কাড়ে দিদারের লাশ রেখে দিয়েছিল খুনী চক্র।

পরে নিহত দিদারের পরিবারের সদস্যরা খুনী আফজলের টিনশেড বিল্ডিং কাড় বা সিলিংয়ে দিদারের মৃত দেহ দেখতে পেয়ে লাশ উদ্ধার করে।

পরে নিহতের স্ত্রী সুবর্না খাতুন গত ২৩ জুলাই বাদী হয়ে সদর মডেল থানায় মামলা দায়ের করেছেন। মামলা নং -১৯ তারিখ ২৩/৭/২০২২। ধারা ৩০২/২০১/৩৪ প্যানেল কোড।
এলাকাবাসী ও মামলার বিবরনে জানা যায়,ক্রোকেরচর উত্তর গোপচর এলাকার জালাল বেপারীর পুত্র মোঃ দিদার হোসেনের সাথে ক্রোকেরচর গ্রামের আফজল মিস্ত্রির কন্যা তুলির সাথে নিহত দিদার হোসেনের পরকিয়া প্রেম ছিল।এরই জের ধরে আফজল মিস্ত্রি, তার স্ত্রী রোজিনা,নিহত দিদার হোসেনের পরকিয়া প্রেমিকা তুলির স্বামী উজ্জল ও তুলি মিলে নির্মম ভাবে নির্যাতন করে দিদার কে হত্যা করে লাশ গুম করার উদ্যোশ্য টিনশেড বিল্ডিং এর কাড়ের উপর লাশ গোপন করে রাখে।

নিহতের বাবা জালাল বেপারী কান্না জড়িত কন্ঠে বলেন,আমার নিরীহ ছেলে দিদার দর্জির কাজের পাশাপাশি বাদাম বিক্রি করে সংসার চালাতো।১৭ জুলাই আফজলের বাসার কাড়ের উপর লাশ দেখে অজ্ঞান হয়ে পড়ি।এলাকার মেম্বার ও গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ তড়িঘড়ি করে লাশ দাফন করে ফেলে।আমাদের লাশ দেখতে দেয়নি।এ বলে ভয় দেখায় থানা পুলিশ গেলে ২ লাখ টাকা খরচ হবে।তুমি এত টাকা কোথায় পাবে।পরে যখন দিদারের মৃত দেহের ছবি ও ভিডিও পাই তখন ছবিতে দেখি রগ কেটে ও নির্মমভাবে নির্যাতন করে দিদার কে হত্যা করা হয়েছে।

থানায় মামলা করা হলেও পুলিশ কাউকে আটক করেনি।
দিদার হোসেন গত ১৬ জুলাই বিকাল ৩ টায় বাসা হতে বের হয়ে ফিরে আসেনি।পরের দিন সন্ধ্যায় করিম মিস্ত্রির পুত্র আফজল মিস্ত্রির বসত বাড়ি হতে দিদারের মৃত দেহ উদ্ধার করা হয়।

এলাকাবাসী জানান,গুম করার জন্য একটি বড় ড্রাম লাশের পাশে এনে রাখা হয়েছিল।( এর ছবি) এই প্রতিবেদকের কাছে সংরক্ষিত আছে।

নিহত দিদার হোসেনের স্ত্রী সুর্বনা খাতুন বলেন,আমার মামী শাশুড়ী খুনী রোজিনার বাসা হতে দোকানের চাবি ও মোবাইল ফোন নিয়ে আসি।লাশ পাওয়ার দিন থানায় আসতে চাইলে মেম্বার ও এলাকার শালিশগন থানায় আসতে দেয়নি।প্রচার করা হয় জীন ভূতে দিদার কে মারছে।খুনী আফজল,সিদ্দিক মাদবরের পুত্র খুনী উজ্জ্বল, উজ্জ্বল স্ত্রী তুলি,আফজলের স্ত্রী রোজিনা সহ মামলায় কারো নাম দিতে দেয়নি মেম্বার ও এলাকার শালিশীগন।ফলে এলাকায় ঘুরে বেড়াচ্ছে খুনীচক্র।
নিহত দিদার হোসেনের পরিবারের দাবী আমরা গরীব মানুষ বলে পুলিশ কোন ব্যবস্থা গ্রহন করছেনা।লাশ ময়নাতদন্তের জন্য কবর থেকে তোলা হবে বললেও কোন কার্যকলাপ দেখা যাচ্ছে না।

অপর দিকে খুনী আফজল ও উজ্জ্বল গংরা হত্যা মামলাটি ভিন্নখাতে নিতে মোটা অংকের টাকা নিয়ে মাঠে নেমেছে।
মামলা তার জলন্ত প্রমান।আফজলের ঘরের কাড় (সিলিং) হতে লাশ উদ্ধার হলেও আসামী বিহীন মামলা রুজ্জু করা হয়।এতে করে এলাকাবাসীর মধ্যে তীব্র ক্ষোভ ও অসন্তোষ বিরাজ করছে।

নিহতের স্ত্রী সুর্বনা খাতুন তার স্বামীর হত্যাকারী আফজল,উজ্জ্বল, তুলি ও রোজিনাকে আইনের আওতায় আনতে প্রধানমন্ত্রী ও জেলা পুলিশ সুপারের হস্তক্ষেপ কামনা করেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরও খবর
© All rights reserved © 2022 Bartoman News
Theme Customized By Theme Park BD