1. admin@sobsomoynarayanganj.com : admin : MD Shanto
রবিবার, ২৯ জানুয়ারী ২০২৩, ১২:০২ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
জনগনের টাকায় অস্ত্র ও গুলি ক্রয় করে জনগনের বিরুদ্ধে ব্যবহার সরকার – ইসহাত সরকার কথা নয় কাজে প্রমান করেছি : এড. জুয়েল শম্ভুপুরা কর্মী সম্মেলনে আওয়ামীগের দুই গ্রুপের সংর্ঘষ আহত ১৫ রূপগঞ্জে ধর্ষণের পর শিশু হত্যা মামলায় একজনের মৃত্যুদন্ড ঝিনাইগাতীতে চাঞ্চল্যকর স্কুল ছাত্রীকে গণধর্ষণ ও হত্যা মামলার মৃত্যুদন্ডপ্রাপ্ত আসামী গ্রেপ্তার আওয়ামীলীগের প্রতিষ্ঠাতাও জিয়াউর রহমান – মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল। জেলা আইনজীবী সমিতির নির্বাচন ২০২৩-২৪ ইং জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ঐক্য পরিষদ মনোনীত পরিষদের প্যানেল পরিচিতি সভা অনুষ্ঠিত আওয়ামীলীগের প্রতিষ্ঠাতাও জিয়াউর রহমান – মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল সোনারগাঁও থানা ও জেলা গোয়েন্দা পুলিশের যৌথ অভিযানে সংঘবদ্ধ ডাকাত দলের ৫ সদস্য গ্রেফতার ঢাবির হলে ছাত্র নির্যাতনের প্রতিবাদে মশাল মিছিল

ঝিনাইগাতীর গজনীর প্রবেশ মুখে গেইট না থাকায় চরম ভোগান্তিতে পর্যটনের ইজারাদার

  • আপডেট সময় : রবিবার, ১৭ জুলাই, ২০২২
  • ৬৭ বার পঠিত

মোঃ বিল্লাল হোসেন(শেরপুর) প্রতিনিধিঃ

শেরপুর জেলার ঐতিহ্যবাহী গজনীর অবকাশ ঝিনাইগাতীর উপজেলার সীমান্তে অবস্থিত। এখানে প্রতি বছর লাখ লাখ পর্যটকরা ভ্রমণে আসেন,দেশের প্রায় সব জেলা উপজেলা থেকে।যেন মনে হয়, শেরপুরের পর্যটনের আনন্দে – তুলশী মালার সুগন্ধে। পর্যটকরা যেন হারিয়ে যায় তাদের সপ্নের জগতে।

গজনীর এই পর্যটন কেন্দ্র যেন এদেশের ১৮ কোটি মানুষের মন জয় করেছে। তাই প্রতি বছরে এই পর্যটনে দেখা যায় লাখো জনতার ভীড়। এখানে রয়েছে, মিনি চিরিয়াখানা আছে বাঘ,হরিণ, সজারু, আরও বিভিন্ন জাতের পশুপ্রাণী। ঝুলন্ত ব্রীজ,কেবলকার,সুইমিংপুল,গারো মায়ের প্রতিমা সহ আরও অনেক কিছু।

এক কথায় বলা যাবে, এখানকার মনোমুগ্ধকর দৃশ্য গুলো পুরো দিনে দেখা কষ্টকর কারণ এখানকার প্রতিটি দৃশ্য যেন পর্যটকের মন কেড়ে নেয়। তাই সব বয়সের মানুষই এই পর্যটন কেন্দ্রে ভ্রমন সফরে আসেন। ভ্রমন পিয়া সুরা বলেন, ঝিনাইগাতীর গারো পাহাড়ে এমন মনোমুগ্ধকর পরিবেশ দেখতে পারবে, তারা কখনো বিশ্বাসী করতো।

এখানে রয়েছে আদিবাসী, গারো পাহাড়, আর তারই সাথে মিশে আছে এই দেশের ১৮ কোটি মানুষের ভালবাসা। আর, আমাদের এই ভালবাসার বন্ধন যেন এভাবেই চিরকাল অটুট থাকে, এর জন্য দিনরাত শ্রম দিয়ে যাচ্ছে পর্যটনের ইজারাদার, ফরিদ, ছানোয়ার, হাছান সহ আরও অনেকে।

সরে জমিনে গিয়ে দেখা যায়, গজনীর প্রবেশ মুখে একটি গেইট না থাকায় চরম বিশৃঙ্খলায় পড়তে হয়। ইজারাদার গন বলেন,অর্ধকোটি টাকা রাজস্ব কর দেওয়া হয়েছে কিন্তু গজনীর প্রবেশ মুখে একটি গেইট না থাকায়, দর্শনার্থীদের চাপে ঠিক ভাবে টোল আদায় করা যাচ্ছে না, এতে অনেক ক্ষতির আশংকা করছেন ইজারাদারগন। তারা বলেন, একটি গেইট হলে সেখানে সবকিছু নিয়ম শৃঙ্খলা বজায় থাকবে পাশাপাশি পর্যটন এরিয়াটাও অনেকটা নিরাপদে থাকবে।

পর্যটনের পরিবেশ নিরাপদ ও সঠিকভাবে টোল আদায়ের লক্ষে, গজনীর প্রবেশ মুখে একটি গেইট নির্মানের দাবি জানান ও ঝিনাইগাতী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ফারুক আল মাসুদ সহ শেরপুর জেলা প্রশাসক, মহোদয় এর সু দৃষ্টি কামনা করেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরও খবর
© All rights reserved © 2022 Bartoman News
Theme Customized By Theme Park BD