1. admin@sobsomoynarayanganj.com : admin : MD Shanto
রবিবার, ০২ অক্টোবর ২০২২, ০৪:৫২ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
ডেঙ্গুতে রেকর্ড ৬৩৫ রোগী হাসপাতালে, একজনের মৃত্যু সিদ্ধিরগঞ্জে স্বেচ্ছাসেবক লীগের সদস্য সংগ্রহ ও মতবিনিময় সভা শক্তি রূপিনী দুর্গা মোবাইল চুরির অপবাদে কিশোরকে নির্যাতন করে হত্যার অভিযোগ উইঘুর মুসলিমদের উপর চীনের নির্যাতন বন্ধ করার দাবিতে পাগলায় জাগ্রত মুসলিম জনতার উদ্যোগে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত বন্দরে মিশুক চালক কায়েসের হাত-পা বাধা জবাইকৃত লাশ উদ্ধার বন্দরে সরকারী স্কুলের জায়গা দখল করে রেখেছে ভূমিদস্যু জালাল আমাদের বিরুদ্ধে তারা প্রকাশ্যে ঘোষণা দিয়ে ষড়যন্ত্র করছে : মির্জা আজম খেলাধুলা মন-মানসিকতা ও শারিরীক বিকাশ ঘটায় : জাকির হোসেন চেয়ারম্যান বন্দর রুপালী আবাসিক এলাকায় অবৈধ মেলা

মদনগঞ্জ ভুমি অফিসে চলছে দুলালের একক রাজত্ব ঘুষ ছাড়া হয়না কাজ নড়েনা ফাইল

  • আপডেট সময় : বৃহস্পতিবার, ২১ এপ্রিল, ২০২২
  • ১৩৪ বার পঠিত

বন্দর প্রতিনিধিঃ

নারায়ণগঞ্জ সিটি কপোর্রেশনের ২০নং ওয়ার্ডে অবস্থিত মদনগঞ্জ ইউনিয়ন ভুমি অফিস। এখানে দীর্ঘ এক বছর ধরে তহসীলদার না থাকায় উপসহকারী তহসীলদার দুলাল বাবুই রাজত্ব করে যাচ্ছে। তার একক নেতৃত্বে ভুমি অফিসে কায়েম হয়েছে অনিয়ম-দূর্ণীতি আর ঘুষের রাম রাজত্ব। নাম প্রস্তাব, নামজারী, ডিসিআর সংগ্রহ, খাজনা দাখিলা থেকে শুরু করে সব কিছুতেই তাকে ঘুষ দিতে হয়। ঘুষ ছাড়া কোন কাজ হয়না দুলাল বাবুর অফিসে। নির্ভেজাল জায়গার মালিকরাও এখানে নানাভাবে হয়রানীর শিকার হন বলে জানান ভুক্তভোগীরা।

নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের ২০ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর শাহেনশাহ আহমেদ মদনগঞ্জ মৌজায় ৯ শতক জমি সম্প্রতি নামজারী করতে যান মদনগঞ্জ ইউনিয়ন ভুমি অফিসে।
এ সময় উপসহকারী তহসীলদার দুলাল বাবু নামজারী বাবদ কাউন্সিলরের কাছে মোটা অংকের টাকা দাবি করেন। পরে তিনি দুলাল বাবুকে এক লাখ টাকা দিলে নামজারী সম্পন্ন হয়।

এ ব্যাপারে কাউন্সিলর শাহেনশাহ আহমেদ জানান, তিনি ৯ শতাংশ নির্ভেজাল জমির নামজারী করতে দুলাল বাবুর কাছে যান। দুলাল বাবু তার কাছে মোটা অংকের টাকা দাবি করেন। পরে তিনি এক লাখ টাকা দিলে নামজারী করে দেন।

সোনাকান্দা এলাকার তাওলাদ হোসেন জানান, তিনি ৩ শতাংশ জমির নামজারীর জন্য গেলে দুলাল বাবু তার কাছেও মোটা অংকের টাকা দাবি করেন। তিন মাস আগে তিনি দুলাল বাবুকে ৭০ হাজার টাকা দেন। কিন্তু টাকা নিয়েও দুলাল বাবু নামজারী করে দিচ্ছেননা। আরও টাকা পেতে তাকে নানাভাবে হয়রানী করছে বলে জানান তাওলাদ হোসেন। এভাবে দুলাল বাবু ১২ জন উমেদার নিয়োগ দিয়ে জমির মালিকদের কাছ থেকে ঘূষ বাবদ লাখ লাখ টাকা হাতিয়ে নিচ্ছেন। রাহাত নামে তার প্রধান উমেদার এসবকিছু চতুরতার সাথে সামাল দিচ্ছেন বলে সূত্র জানায়। প্রতি মাসে অর্ধশত নামজারী হয় এ অফিসে।

প্রতি নামজারী ১০ হাজার টাকা থেকে ৫০ হাজার টাকা পর্যন্ত নেওয়া হয় এই অফিসে। ডিসিআর সরবরাহ আর খাজনা দাখিলায়ও মোটা অংকের ঘূষ আদায় করা হয় বলে ভুক্তভোগীরা অভিযোগ করে। অভিযোগের বিষয়টি জানতে মোবাইল ফোনে দুলাল বাবুর সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি মিটিংয়ে আছেন বলে ফোন কেটে দেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ জাতীয় আরও খবর
© All rights reserved © 2022 Bartoman News
Theme Customized By Theme Park BD